রাজধানীতে স্বাস্থ্যবিধি সচেতনতায় অভিযান: মাস্ক না পরায় জরিমানা

নিউজ দর্পণ, ঢাকা: স্বাস্থ্যবিধি পরিপালন ও মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে একযোগে রাজধানীর বসুন্ধরা সিটি শপিংমল ও নিউমার্কেট এলাকায় অভিযান চালিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় মাস্ক না পরায় বসুন্ধরা সিটি শপিংমলের কয়েকজন ব্যবসায়ীকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

আজ মঙ্গলবার বেলা সোয়া ১২টা থেকে এ অভিযান শুরু হয়। এতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন ডিএমপির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ রফিকুল হক। অভিযান চলাকালে দেখা যায়, ক্রেতারা মাস্ক পরলেও ব্যবসায়ীরা মাস্ক পরছেন না। এ কারণে এখন পর্যন্ত ১২ জনকে বিভিন্ন অংকের জরিমানা করা হয়েছে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ রফিকুল হক বলেন, দুপুর থেকে অভিযান চলছে। এ সময় কিছু কিছু দোকানি মাস্ক না পরেই ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। এই অপরাধে তাদের ২০০, ৩০০ ও ৫০০ টাকা পর্যন্ত জরিমানা করা হয়েছে।

এদিকে নিউমার্কেট এলাকায় স্বাস্থ্যবিধি সচেতনতায় অভিযান চালাচ্ছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সঞ্জীব দাসের নেতৃত্বে এই অভিযান পরিচালিত হচ্ছে। অভিযানের অংশ হিসেবে ক্রেতা-বিক্রেতাদের সচেতন করতে মাইকিং করে মাস্ক পরার পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। সেইসঙ্গে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতেও বলা হচ্ছে।

এর আগে কোভিড-১৯ সংক্রমণ রোধে গত ১৪ এপ্রিল ভোর ৬টা থেকে আটদিনের কঠোর লকডাউন শুরু হয়। লকডাউনের মধ্যে দোকান-শপিংমল বন্ধ রাখাসহ ১৩টি নির্দেশনা দেয়া হয় সরকারের পক্ষ থেকে। তবে দোকান মালিকদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে ১১ দিন বন্ধ থাকার পর গত ২৪ এপ্রিল থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান ও শপিংমল খুল দিয়েছে সরকার।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে জারি করা এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, করোনাভাইরাসজনিত রোগের (কোভিড-১৯) বিস্তার রোধে শর্তসাপেক্ষে সার্বিক কার্যাবলি/চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আগের নির্দেশনার ধারাবাহিকতায় ব্যাপক সংখ্যক মানুষের জীবন-জীবিকার বিষয় বিবেচনা করে নতুন এই নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়, স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট বাজার/সংস্থার ব্যবস্থাপনা কমিটি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। মার্কেট খুলে দেয়ার পর ক্রেতা কম আসলেও কোথাও কোথাও বিক্রেতারা মাস্ক পরছেন না এমন অভিযোগ উঠেছে।

এ পরিস্থিতিতে সোমবার (৩ মে) মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানান, ক্রেতা ও বিক্রেতারা মাস্ক না পরলে মার্কেট বন্ধ করে দেয়া হবে। পুলিশ, সিটি করপোরেশন ও স্থানীয় প্রশাসন এই ব্যবস্থা নেবে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘গতকাল (রোববার) মাননীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সভাপতিত্বে একটা মিটিং হয়েছে। সেখানে কিছু সুপারিশ করা হয়। আজকে সেই বিষয়ে ক্যাবিনেট সিদ্ধান্ত দিয়েছে। আজ থেকে পুলিশ, সিটি করপোরেশন, ম্যাজিস্ট্রেট ও অ্যাডমিনিস্ট্রেশন তারা দেশের প্রত্যেকটি মার্কেট সুপারভাইজ করবে। কোনো মার্কেটে এত লোক হয়তো কন্ট্রোল করা যাবে না, কিন্তু মাস্ক ছাড়া যদি বেশি লোকজন ঘোরাফেরা করে প্রয়োজনে আমরা সেসব মার্কেট বন্ধ করে দেব। ক্লিয়ারলি এটা বলে দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘দোকান মালিক সমিতির সভাপতিরা আমাদের সহযোগিতা করবেন বলে আশ্বস্ত করেছেন। ওনারা নিজেরাও এটা সুপারভাইজ করবেন। খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম আরও বলেন, ‘বাইরে প্রচার করতে হচ্ছে যে, কোনো অবস্থায় যদি স্বাস্থ্যবিধির ব্যাপক ভায়োলেশন হয় তাহলে প্রয়োজনে আমরা ওই মার্কেট বন্ধ করে দেব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *