গৃহকর্মী সুইটিকে নির্যাতনকারী সেই দম্পতি রিমান্ডে

নিউজ দর্পণ, ঢাকা: রাজধানীর তোপখানা এলাকায় ১২ বছর বয়সী শিশু গৃহকর্মী সুইটিকে নির্যাতনের ঘটনায় শাহবাগ থানার মামলায় আসামি তানভীর আহসান পায়েল ও তাঁর স্ত্রী নাহিদ জাহান আঁখির একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

আজ রবিবার (১৮ জুলাই) ঢাকা মহানগর হাকিম আবু সাঈদের আদালত শুনানি শেষে এই আদেশ দেন।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) আদালতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শাহবাগ থানার উপপরিদর্শক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন দুই আসামির সাত দিন করে রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেন। গতকাল আসামিদের পক্ষে তাঁদের আইনজীবী রিমান্ড বাতিল ও জামিন চেয়ে আবেদন করেন। এসময় রাষ্ট্রপক্ষ জামিনের বিরোধিতা করেন। এরপর উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন আবেদন খারিজ করে তাঁদের একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গত ৫ জুলাই রাজধানীর শাহবাগ থানায় ভুক্তভোগীর বাবা শহিদ মিয়া বাদী হয়ে আসামি তানভীর আহসান পায়েল ও তাঁর স্ত্রী নাহিদ জাহান আঁখির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। এরপর আদালত মামলার এজাহার গ্রহণ করে আগামী ২ আগস্ট তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। ওই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গত ৩ জুলাই দিবাগত রাতে সেগুনবাগিচার বাসা থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করে শাহবাগ থানা পুলিশ।

পরদিন ৪ জুলাই ফৌজদারি কার্যবিধি ৫৪ ধারায় আসামিদের গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে হাজির করা হয়। এরপর আদালত তাঁদের জামিন খারিজ করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।রাজধানীর তোপখানা এলাকায় ১২ বছর বয়সী শিশু গৃহকর্মী সুইটিকে নির্যাতনের ঘটনায় শাহবাগ থানার মামলায় আসামি তানভীর আহসান পায়েল ও তাঁর স্ত্রী নাহিদ জাহান আঁখির একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

আজ রবিবার (১৮ জুলাই) ঢাকা মহানগর হাকিম আবু সাঈদের আদালত শুনানি শেষে এই আদেশ দেন।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) আদালতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শাহবাগ থানার উপপরিদর্শক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন দুই আসামির সাত দিন করে রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেন। গতকাল আসামিদের পক্ষে তাঁদের আইনজীবী রিমান্ড বাতিল ও জামিন চেয়ে আবেদন করেন। এসময় রাষ্ট্রপক্ষ জামিনের বিরোধিতা করেন। এরপর উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন আবেদন খারিজ করে তাঁদের একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গত ৫ জুলাই রাজধানীর শাহবাগ থানায় ভুক্তভোগীর বাবা শহিদ মিয়া বাদী হয়ে আসামি তানভীর আহসান পায়েল ও তাঁর স্ত্রী নাহিদ জাহান আঁখির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। এরপর আদালত মামলার এজাহার গ্রহণ করে আগামী ২ আগস্ট তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। ওই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গত ৩ জুলাই দিবাগত রাতে সেগুনবাগিচার বাসা থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করে শাহবাগ থানা পুলিশ।

পরদিন ৪ জুলাই ফৌজদারি কার্যবিধি ৫৪ ধারায় আসামিদের গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে হাজির করা হয়। এরপর আদালত তাঁদের জামিন খারিজ করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *