হাত-পা ভেঙে জমি দখল করায় রেললাইনে মাথা দিয়ে আত্মহত্যা

নিউজ দর্পণ, ঢাকা: হাত-পা ভেঙে জমি দখল করে নেয়ায় রেললাইনে মাথা দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন এমরুল হাসান (৪০) নামের এক ব্যক্তি।
আজ বুধবার সকালে রাজশাহী নগরীর বিলশিমলা বন্ধগেট এলাকা থেকে তার দ্বিখণ্ডিত মরদেহ উদ্ধার করে রেলওয়ে পুলিশ। এমরুল হাসান চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার বোয়ালিয়া ইউনিয়নের ঘাটনগর ফিটু মিয়ার ছেলে।

এমরুলের পকেট থেকে সুইসাইড নোট উদ্ধার করেছে পুলিশ। সুইসাইড নোটে এমরুল লিখেছেন, ‘জালাল, কালাম ও তাদের ছেলে রানা অনেকে আমার হাত ও পা ভেঙেছে। এই কষ্টে আমি জ্বলে পুড়ে যাচ্ছিলাম।’

এই চিরকুটে তিনি উল্লেখ করেছেন কে তার কাছে কত টাকা পাবে। মৃত্যুর পর কোন মোবাইল নম্বরে ফোন করে খবর দেয়া যাবে সে কথাও চিরকুটে লেখা আছে। তার মরদেহ কোন কবরস্থানে দাফন করা হবে সেটিও লেখা হয়েছে।

দুটি চিরকুটের একটিতে এমরুল লিখেছেন, ‘আমার জীবনে আমার আপনজন আমার বেটি (মেয়ে) ও স্ত্রী। তিনজন আমার প্রিয়। আমাকে আর ভালো লাগছে না। আমার লেখা কাগজ দুইটা আমার স্ত্রীকে দেবেন। কাগজের ফটোকপি পুলিশকে দেবেন। কাগজের মেইন কপি দুইটা আমার স্ত্রীকে দেবেন।’

প্রত্যদর্শীরা জানান, সকাল সাড়ে ৯টার দিকে এমরুল ক্র্যাচে ভর দিয়ে রেললাইনের পাশ ধরে হাঁটছিলেন। ওই সময় রাজশাহী থেকে রহনপুরগামী কমিউটার ট্রেনটি ওই এলাকা পার হচ্ছিল।

ট্রেনটি খুব কাছে চলে এলেই এমরুল রেললাইনে মাথা দেন। এতে তার মাথা শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। রেললাইনের পাশে পড়ে থাকে এমরুলের দেহ আর তার ক্র্যাচ।

নিহত এমরুলের স্ত্রী আয়েশা বেগম জানান, গত সোমবার চিকিৎসার জন্য তারা রাজশাহী এসেছেন। নগরীর তেরোখাদিয়া এলাকায় তারা তার বোনের বাড়িতে ওঠেন। সকালে চা পান করতে বের হচ্ছেন জানিয়ে বাড়ি ছাড়েন এমরুল। এরপর তিনি রেললাইনে মাথা দিয়ে আত্মহত্যা করেন। পরে পুলিশ চিরকুটে থাকা তার বোনের নম্বরে ফোন করে বিষয়টি অবহিত করে।

আয়েশা জানান, প্রায় পাঁচ মাস আগে জালাল ও কালামরা তাদের জমি দখল করে বাড়ি করেছেন। এমরুল বাধা দিতে গেলে পিটিয়ে তার হাত ও পা ভেঙে দেয়া হয়। তার স্বামীকে ক্র্যাচে ভর দিয়ে চলতে হতো।

জমি দখলের বিষয়ে মামলা করলেও হাত-পা ভাঙার কারণে দৌড়াদৌড়ি করতে পারতেন না তার স্বামী। সে কারণে জমিও উদ্ধার করতে পারেননি। ােভে তার স্বামী আত্মহত্যা করেছেন।

রাজশাহী রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ কামাল জানান, এমরুলের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ নিয়ে আইনত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানান ওসি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *