হঠাৎ পাহাড়ি ঢলে ফেনীর ৮ গ্রাম প্লাবিত

নিউজ দর্পণ, ফেনী : ভারতীয় পাহাড়ি ঢলের পানির চাপে ফুলগাজী উপজেলায় মুহুরী- কহুয়া নদীর বাঁধ ভেঙ্গে আট গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এতে জনজীবন বিপর্যস্ত হওয়ার পাশাপাশি গ্রামের রোপা আমন ও শীতকালীন সবজি পানির নিচে তলিয়ে গেছে।
শনিবার রাতে ফুলগাজী সদর ইউনিয়নের উত্তর দৌলতপুর মোহাম্মদ উল্যাহর বাড়ির পাশ্ববর্তী মুহুরী নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে ৫০-৬০ ফুট ভাঙ্গন সৃষ্টি হয়। একইসাথে উত্তর দৌলতপুরে কহুয়া নদীর বাঁধের ভেঙে যায়। এতে ফুলগাজী বাজারের পশ্চিম অংশে শ্রীপুর এলাকায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়ে উপজেলা সদরের মূল সড়ক তলিয়ে যায়।
পানির প্রবল চাপে মধ্যরাতে কহুয়া নদীর দৌলতপুর অংশেও বাঁধে ভাঙন ধরে। এতে করে উত্তর দৌলতপুর, দৌলতপুর, বৈরাগপুর, সাহাপাড়া, উত্তর বরইয়া গ্রামসহ নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।
এছাড়াও পানিবন্দি হয়েছে কয়েকশ পরিবার; ডুবে গেছে জমির ফসল, রাস্তাঘাট ও মুরগির খামার; ভেসে গেছে কয়েকশ পুকুরের মাছ। কৃষকেরা পানিতে ডুবে থাকা ফসল নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন।
ফুলগাজী সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নুর ইসলাম জানান, পানি উন্নায়ন বোর্ডের নিয়োজিত ঠিকাদারদের গাফেলতির কারণে বার বার এই ভাঙ্গন হয়। তাতে ফসলের ও মাছের পুকুরের ব্যাপক ক্ষতি হয়।
কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ফেনীর মনিটরিং অফিসার আবু নইম মোঃ সাইফুদ্দিন জানান, ১শ ৫ হেক্টর রোপা পানিতে ডুবে গেছে এবং প্রায় ৬ হেক্টও রবিশস্য পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে।
পানি উন্নয়ন উন্নয়ন বোর্ড পূর্বাঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী জহির উদ্দিন আহম্মেদ জানান, ২০১২ সালের পর থেকে প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে এখানে বন্যা হয়। এটি আসলে ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢল। যার কারণে নদী ভাঙ্গন হয়। ভাঙ্গন স্থানে দ্রুত মেরামতের ব্যাবস্থা নেয়া হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *