সৌদি প্রবাসীরা শিগগিরই ফিরতে পারবেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

নিউজ দর্পণ, ঢাকা: সৌদি আরব থেকে দেশে এসে ভিসা ও ফাইট জটিলতায় আটকে পড়া প্রবাসীরা খুব শিগগিরই দেশটিতে ফিরতে পারবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন।

তিনি বলেন, ছুটিতে আসা সব সৌদি প্রবাসী দেশটিতে ফিরতে পারবেন। ভিসা জটিলতার যে বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে তাদের মধ্যে, তা নিয়ে প্রকৃতপে কোনো শঙ্কা থাকার কথা নয়। খুব শিগগিরই তারা ফিরতে পারবেন।

আজ শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে সুগন্ধা’র নবনির্মিত কমপ্লেক্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, যাদের ইকামা (কাজ করার অনুমতিপত্র) আছে, সেখানে (সৌদিতে) চাকরি আছে কিন্তু দেশে এসেছিলেন, তারা সবাই ফিরে যেতে পারবেন। ভিসা নিয়ে কোনো জটিলতা হবে না। আমরা সৌদি কর্তৃপরে সঙ্গে কথা বলছি। কারও ভিসার মেয়াদ শেষ হলেও ইকামা থাকলে তাদের আবার ভিসা দেওয়া হবে।

সৌদি প্রবাসীদের টিকিটের ভিড় নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিষয়টি দুঃখজনক। কিন্তু যারা আগে থেকে টোকেন নিয়েছিলেন, তারা তো আগেই যাবেন। পর্যায়ক্রমে সবাই যাবেন। দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই।

এর আগে ফরেন সার্ভিস একাডেমির নতুন কমপ্লেক্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কে আবদুল মোমেন বলেন, বঙ্গবন্ধু দায়িত্ব গ্রহণের পর সবসময় শান্তি প্রতিষ্ঠার ওপর জোর দিয়েছেন। বাংলাদেশ এখন জাতিসংঘে শান্তি প্রতিষ্ঠার ‘ব্র্যান্ডিং’য়ে পরিণত হয়েছে। জাতিসংঘের ৫৯টি শান্তি মিশনের ৫৪টি তেই কাজ করছে বাংলাদেশ। আর এতে এক লাখ ৬৩ হাজার ১৮১ জন নারী ও পুরুষ শান্তিরী কর্মী কাজ করছেন। আজ আমরা আমাদের মন্ত্রণালয় ও বিদেশের মিশনের সেবার পরিধি আরও বাড়াচ্ছি। যারা বিদেশে অবস্থানরত, তাদের জন্য ২৪ ঘণ্টা হটলাইন চালু করেছি। এই ভবন স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর দফতর হিসেবে কাজ করেছে। আজকের যে অর্জন, তার শুরুর অনেক কিছুর সাী এই সুগন্ধা।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন ও ঢাকায় নিযুক্ত জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধি মিয়া সেপ্পো বক্তব্য রাখেন।

প্রসঙ্গত, সৌদি আরব প্রবাসীরা ছুটি ও করোনাভাইরাসের কারণে দেশে ফেরার পর বিমান চলাচল বন্ধ হওয়ায় আটকা পড়েছিলেন। তারা বলছেন, তাদের অনেকেরই ভিসার মেয়াদ ৩০ সেপ্টেম্বর শেষ হয়ে যাবে। এর মধ্যে ফিরতে না পারলে আর বৈধভাবে তাদের সৌদি আরবে যাওয়ার উপায় থাকবে না। এর মধ্যে তারা বিমান বাংলাদেশ ও সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্সের অফিসে বিােভ করেছেন। পরে প্রবাসীকল্যাণ ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সামনেও তারা বিােভ করেন। এ পরিস্থিতিতে বিমান জানায়, সৌদি আরব তাদের ফাইট পরিচালনার অনুমতি দিলেও তাদের কোনো বিমানবন্দরে ফাইট অবতরণের অনুমতি (ল্যান্ডিং পারমিশন) দেয়নি। পরে বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাতে বিমান জানায়, তারা সৌদি আরবে নিয়মিত ফাইট পরিচালনার অনুমতি না পেলেও চার্টার্ড ফাইট পরিচালনার অনুমতি পেয়েছে। পরে বৃহস্পতিবার রাতে জানা যায়, আরও দুইটি বিশেষ ফাইট পরিচালনার অনুমতি পেয়েছে তারা। এর একটি জেদ্দা ও আরেকটি রিয়াদে যাবে বলে জানায় বিমান। এর মধ্যে বুধবার পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম জানান, যেসব সৌদি প্রবাসী আটকা পড়েছেন, তাদের কাজের বৈধ অনুমতি তথা ইকামার মেয়াদ ২৪ দিন বাড়ানো হয়েছে। পরে রাতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর) থেকে ঢাকায় সৌদি দূতাবাসের কার্যক্রম শুরু হবে। সেখানে প্রবাসীদের সব সমস্যার সমাধান করা হবে। তাদের ধৈর্য ধরার আহ্বান জানায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *