সরকার গুম, খুন, আকন্ঠ দূর্নীতির টাকা পাচারে মগ্ন: রিজভী

নিউজ দর্পণ, ময়মনসিংহ: মানুষ বিনা চিকিৎসায় মারা যাচ্ছে, আর সরকার দেশকে গুম, খুন, আকন্ঠ দূর্নীতির টাকা পাচারে মগ্ন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।
বিএনপির ৪২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে ময়মনসিংহের পাগলায় আজ বিকাল ৪ টায় গফরগাঁও উপজেলা, পৌর ও পাগলা থানা বিএনপি আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
রিজভী বলেন, একটি দিশাহীন জাতিকে স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়ে দিশা দেখিয়েছিলেন শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান। কিন্ত সদ্য স্বাধীন দেশে শেখ মুজিবুর রহমান বলেছিলেন , মানুষ পায় সোনার খনি, আমি পেয়েছি চোরের খনি। এই অবৈধ ভোটারবিহীন সরকারটি পুলিশ দিয়ে গুম, খুন, মামলা হামলা করে গণতান্ত্রিক আন্দোলন স্তব্ধ করে দিতে চায়।এই দূর্নীতিবাজ সরকারটি বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ৮০০ কোটি টাকা পাচার করেছে, ব্যাংকগুলো লোপাট হয়ে গেছে, হাজার হাজার কোটি দূর্নীতির টাকা পাচার করে বিদেশে বেগম পাড়া বানিয়েছে।
তিনি বলেন, অবঃ মেজর সিনহাকে নির্মমভাবে হত্যাকারী পুলিশ ইন্সপেক্টর প্রদীপ এর আগে শতাধিক বিএনপি নেতা-কর্মীসহ অনেককে গুম করেছে। আজকে ইউএনও এর উপর হামলা হচ্ছে! এমবাসেডর গুম হয়ে যাচ্ছে। প্রখ্যাত আলোক চিত্র সাংবাদিক শহিদুল আলমকে নির্মমভাবে নির্যাতন করা হয়েছে।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন,এই সরকার ওয়ান ইলেভেনের ফসল। বিএনপি ভাঙ্গার নানা ষড়যন্ত্র করা হয়েছে । সকল ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হয়েছে। কারণ এদেশের সাহসী সন্তানরাই বিএনপি করে ।

ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ও স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক দফতর সম্পাদক আক্তারুজ্জামান বাচ্চুর সভাপতিত্বে বিএনপি নেতা আবু সাঈদ মাষ্টার,ডাঃ মান্নান , বজলুল হক, বিএনপি নেতা শেখ মোঃ ইসমত, এ্যাড. জহিরুল ইসলাম নিঝুম, উপজেলা কৃষক দলের আহ্বায়ক আতিকুল ইসলাম বাবুল, সিনিয়র যু্গ্ম আহ্বায়ক রফিকুল ইসলাম, পাগলা থানা কৃষক দলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক মকবুল হোসেন, আবুল কালাম আজাদ, মনির মিয়া , জেলা তাঁতী দলের যুগ্ম আহ্বায়ক, বিএনপি নেতা হেলাল উদ্দিন, নয়ন সরকার, জুয়েল সরকার, শামছুল আলম ফুল মিয়া, গফরগাঁও উপজেলা মৎস্যজীবি দলের আহ্বায়ক লোকমান হোসেন, পাগলা থানা যুবদল নেতা ইয়াসিন খান, পাগলা থানা জাসাস আহ্বায়ক রেজাউল হক সিদ্দিকী খোকন, গফরগাঁও উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক জাবের আল মামুন সুজন, মনিরুজ্জামান মনির, উজ্জল আহমেদ পাপ্পু, ইবনে আজাহার মাহমুদ, রতন শেখ, রিপন মিয়া, বিএনপি নেতা আমিনুল ইসলাম বাবুল, আবুল মুনসুর, যুবদল নেতা মোঃ হারুন মিয়া, হানিফ মিয়া, বুলবুল সরকার, নাইমুল ইসলাম বাদল, মোহাইমিনুল ইসলাম জনি, জাহিদ হাসান কর্ণেল, ইব্রাহিম খলিল, মনির সরকার, তাতী দল নেতা এ্যাড হাফিজ, চান মিয়া, ছাত্রদল নেতা সুখেন আকন্দ, ওবায়দুল্লাহ, ইবনে আজাহার কল্লোল, ফরহাদ হোসেন, শামীম আজাদ, সিয়াম মন্ডল, আরিফুল ইসলাম, তানিম আহমেদ, হারুন মিয়া, ইমরান হোসেনসহ বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *