সরকারের ব্যর্থতা ঢাকতে বিভ্রান্তমূলক তথ্য দিচ্ছে আ.লীগ: রিজভী

নিউজ দর্পণ, কুড়িগ্রাম: করোনা ও বন্যা নিয়ন্ত্রণে সরকারের ব্যর্থতা ঢাকতে, জনগণের দৃষ্টিকে সরাতে আওয়ামী লীগের নেতারা বিভ্রান্তিমূলক তথ্য দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।
তিনি বলেন, ওবায়দুল কাদের বলেছেন, করোনা নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। সত্যিকার অর্থে করোনা সারাদেশে গ্রাম গঞ্জে ব্যাপক বিস্তার লাভ করেছে। সরকারের লোকজন প্রকৃত পরিস্থিতি ঢাকা দেওয়ার জন্য এসব বলছেন। আর সরকারের লোকজন প্রধানমন্ত্রীকে খুশি করতে বলছেন করোনা নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। প্রকৃত পরিস্থিতি উপলব্ধি করছে না।
আজ মঙ্গলবার কুড়িগ্রাম প্রেসক্লাবে বিএনপি’র পক্ষ থেকে করোনা সুরক্ষা সামগ্রি বিতরণকালে তিনি এসব কথা বলেন। এরআগে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও জেলা মহিলা দলের আহবায়ক অ্যাডভোকেট রেহেনা খানম বিউটির মৃত্যুতে তার কুড়িগ্রামস্থ বাসভবণে শোক সন্তপ্ত পরিবারকে সমবেদনা জানাতে যান এবং কবর জিয়ারত করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি রাশেদুল হক, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রানা, সহ সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক, মোস্তাফিজুর রহমান, শফিকুল ইসলাম বেবু, যুগ্ম সম্পাদক হাসিবুর রহমান হাসিব, ব্যারিস্টার রবিউল আলম সৈকত প্রমুখ।
রুহুল কবির রিজভী বলেন, করোনা শুরুর প্রথম দিকে করোনা মোকাবেলার প্রস্তুতি নিলে করোনা এত প্রভাব বিস্তার করতে পারত না। সরকার তখন অন্য একটি কাজে ব্যস্ত ছিল। করোনা নিয়ন্ত্রণে কোন কাজ করেনি। সরকার করোনা নিয়ন্ত্রণে সম্পূর্ণরূপে ব্যর্থ। তারপরও প্রধানমন্ত্রী কে খুশি করার জন্য সরকারের মন্ত্রী এমপিরা বানিয়ে অসত্য, মিথ্যা কথা বলছেন। দেশের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিসহ সাধারণ মানুষ করোনায় মারা যাচ্ছে। সরকারের পক্ষ থেকে করোনার প্রকৃত তথ্য মানুষকে জানালে তারা সচেতন হতে পারত।কিন্তু সরকার সেটি না করে মিথ্যা বলছে করোনা নিয়ন্ত্রণে আছে।
তিনি বলেন, করোনার মধ্যে বন্যায় মানুষের উপর যেন মরার উপরে খরার ঘা। বানভাসি মানুষ না খেয়ে হাহাকার করছে। রাস্তার উপরে আশ্রয় নিয়েছে। সরকার বানভাসি মানুষের জন্য কোন পদক্ষেপ নেয়নি। তাদের ত্রাণ দেওয়া হচ্ছে না। সরকারি সহয়তা করা হচ্ছে না।
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, করোনার মধ্যে সরকারের স্বাস্থ্য খাতে বাজেট গতানুগতিক। তারা মেগা প্রজেক্ট নিয়ে ব্যস্ত। কারণ মেগা প্রজেক্ট থেকে টাকা পয়সা অর্জন করা যায়। স্কুল, কলেজ, হাসপাতাল ধ্বংস হয়ে গেছে। সেদিকে সরকারের কোন নজর নেই। করোনার ভয়াবহতায় মানুষ কাতরাচ্ছে। প্রয়োজনীয় চিকিৎসা না পেয়ে মানুষ রাস্তাঘাটে মারা যাচ্ছে। এক হাসপাতাল থেকে আর এক হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা পাচ্ছে না। এই হচ্ছে সরকারের সফলতা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *