রাজধানীর জলাবদ্ধতা নিরসনের দায়িত্ব পাচ্ছে দুই সিটি করপোরেশন

নিউজ দর্পণ, ঢাকা:রাজধানীর জলাবদ্ধতা নিরসনে বৃষ্টির পানি নিষ্কাশনের দায়িত্ব পাচ্ছে সিটি করপোরেশন। ঢাকা ওয়াসার থেকে এই দায়িত্ব ঢাকা উত্তর ও দণি সিটি করপোরেশনের কাছে হস্তান্তর করা হচ্ছে।

এ জন্য আগামীকাল রোববার সচিবালয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগে পানি নিষ্কাশনের দায়িত্ব দুই সিটির কাছে হস্তান্তরের ল্েয সভা অনুষ্ঠিত হবে।

আজ শনিবার স্থানীয় সরকার বিভাগের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. হায়দার আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, সভায় সভাপতিত্ব করবেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। এছাড়া সভায় ঢাকা উত্তর ও দেিণর মেয়র, স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব, ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এবং অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।

জনসংযোগ কর্মকর্তা বলেন, ‘সভায় আলোচনার মাধ্যমে বৃষ্টির পানি নিষ্কাশনের দায়িত্ব ঢাকা ওয়াসার কাছ থেকে উত্তর ও দণি সিটি করপোরেশনের কাছে হস্তান্তরের বিষয়টি চূড়ান্ত হবে।’

সামান্য বৃষ্টিতেই রাজধানীতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। পানি নিষ্কাশনের দায়িত্ব ঢাকা ওয়াসার থাকলেও তারা ব্যর্থ বলে মনে করেন নগর বিশেষজ্ঞ ও সাধারণ নাগরিকরা। ওয়াসার ব্যর্থতা নিয়ে বিভিন্ন সময় প্রকাশ্যে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন মেয়ররাও। আইন অনুযায়ী তারা পানি নিষ্কাশনের দায়িত্ব সিটি করপোরেশনকে দেয়ার দাবিও জানিয়েছেন।

রাজধানীর জলাবদ্ধতা নিয়ে গত ২২ জুলাই অনলাইন সভায় ঢাকা দেিণর মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, শহরের জলাবদ্ধতা নিরসনের দায়িত্ব ওয়াসা ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের ওপর অর্পিত। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে তারা সে দায়িত্ব পালনে চরমভাবে ব্যর্থ হয়েছে। দায়িত্ব আমাদের দিন, আমরা দীর্ঘমেয়াদি মহাপরিকল্পনার মাধ্যমে ঢাকা শহরের জলাবদ্ধতা নিরসন করব।

‘স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) আইন ২০০৯’ এর ২য় তফসিল ও ৩য় তফসিলের বিভিন্ন বিধি, ধারা ও উপধারা উল্লেখ করে মেয়র বলেন, সিটি করপোরেশনের আওতাভুক্ত এলাকায় পানি নিষ্কাশন, জলাধার সংরণ ও রণাবেণ করতে সিটি করপোরেশনরই দায়বদ্ধ। কিন্তু দীর্ঘদিন ঢাকা ওয়াসা ও পানি উন্নয়ন বোর্ড-পাউবো জলাধার সংরণ, রণাবেণ ও পানি নিষ্কাশনসহ জলাবদ্ধতা নিরসনের সেই দায়িত্ব তাদের আওতায় রেখেছে।

তাপস আরও বলেন, ‘আইন অনুযায়ী, তারা আমাদের কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করছে না। কিন্তু সেই দায়িত্ব সঠিকভাবে পালনও করছে না। ওয়াসা ও পানি উন্নয়ন বোর্ড দায়সারাভাবে দায়িত্ব পালন করছে বলেই বছরের পর বছর ঢাকার জলাবদ্ধতা প্রধান সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। আইন অনুযায়ী দায়িত্ব আমাদের কাছে হস্তান্তর করুন, আমরা দায়িত্ব নিতে প্রস্তুত। দায়িত্ব নিয়ে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনার মাধ্যমে ঢাকা শহরকে, ঢাকাবাসীকে জলাবদ্ধতার অভিশাপ থেকে মুক্তি দেব।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *