বিজয়ের দ্বারপ্রান্তে বাইডেন: দলের লোকদের ‘সন্দেহ’ ট্রাম্পের

নিউজ দর্পণ, ডেস্ক: জমে উঠেছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে উত্তেজনা আর কৌতুহল। শেষ মুহূর্তে এসেও নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না, কে হচ্ছেন নতুন প্রেসিডেন্ট। তবে ২৬৪টি ইলেকটোরাল ভোট নিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের চেয়ে অনেকটাই এগিয়ে আছেন ডেমোক্র্যাটিক প্রার্থী জো বাইডেন। ট্রাম্পের পক্ষে এ পর্যন্ত ইলেকটোরাল ভোট পড়েছে ২১৪টি। আর মাত্র ৬টি ইলেকটোরাল ভোট ঝুলিতে পুড়তে পারলেই হোয়াইট হাউসের দিকে পা বাড়াবেন বাইবেন। যেখানে ট্রাম্পের প্রয়োজন আরও ৫৬টি।
এদিকে অতি উত্তেজনায় নিজেকে বিজয়ী ঘোষণা দিয়ে হোয়াইট হাউসের ইস্ট রুমে প্রথা ভেঙে বিয়ার পার্টি করেছেন ট্রাম্প। তবে সময় যত যাচ্ছে ট্রাম্পের মুখের চওড়া হাসিটা ততই ছোট হয়ে আসছে। ইলেকটোরাল ভোটেই শুধু নয়, জনতার ভোটেও বাইডেনের চেয়ে অনেকটা পেছনে আছেন বর্তমান ক্ষমতাসীন রিপাবলিকান পার্টির এই প্রার্থী।
এমতাবস্থায় ক্ষুব্ধ হয়ে নিজ দলের সিনেটরদের ওপর চড়াও হয়েছেন ট্রাম্প। তাদের নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন তিনি। নিজেদের ঘাঁটি হিসেবে চিহ্নিত রাজ্যগুলোতে ডেমোক্র্যাটদের সঙ্গে ভোটের ব্যব্যধান কমাতে শুরু করলে সিনেটরদের ফোন করে তাদের ওপর বিরক্তি ও সন্দেহ প্রকাশ করেন ট্রাম্প। এমনকি আগে থেকে ঠিক করে রাখা আইনি কৌশলের ওপরও ক্রমশ আস্থা হারাচ্ছেন তিনি। ইতোমধ্যে অ্যারিজোনার গভর্নর ডগ ডসি, জর্জিয়ার ব্রায়ান কেম্প, ফ্লোরিডার গভর্নর রন ডেসান্টিসকে ফোন করে রাগ ঝেড়েছেন ট্রাম্প।
অ্যারিজোনায় বাইডেনকে বিজয়ী ঘোষণার পরই নিজ দেশের গণমাধ্যম ফক্স নিউজের ওপর বিরক্তি প্রকাশ করেন ট্রাম্প। সেই রাজ্যের ভোট গণনা স্থগিত করার জন্য মামলার নির্দেশ দেন তিনি। এমনকি ভোটের দিন রিপাবলিকান সমর্থকরা দিনভর আইনি কৌশলে ব্যস্ত থাকায়ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন ট্রাম্প।
এরইমধ্যে ৪৫টি অঙ্গরাজ্যের ভোটের ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। বাকি আছে ৫টির ফলাফল। এগুলো হলো- নেভাদা, আলাস্কা, পেনসিলভানিয়া, জর্জিয়া ও নর্থ ক্যারোলিনা। এই ৫টি অঙ্গরাজ্যের ফলাফলের ওপর নির্ভর করছে, কে হচ্ছেন আমেরিকার নতুন প্রেসিডেন্ট। এরমধ্যে নেভাদায় ৬টি, আলাস্কায় ৩টি, জর্জিয়ায় ১৬টি, নর্থ ক্যারোলিনায় ১৫টি ও পেনসিলভেনিয়ায় ২০টি ইলেকটোরাল ভোট রয়েছে।
আপাতত সব হিসাবেই বাইডেন এগিয়ে থাকলেও ওই ৫ রাজ্যের সবকটিতে যদি ট্রাম্পের জয় হয় তবে বাইডেন শিবিরের বিজয়ী হওয়া কঠিন হয়ে পড়বে। কারণ ট্রাম্পের দরকার আরও ৫৬টি ইলেকটোরাল ভোট। ওই ৫টি অঙ্গরাজ্যে মোট ইলেকটোরাল ভোট আছে ৬০টি। সবগুলো যদি ট্রাম্প পেয়ে যান তবে তার মোট ইলেকটোল ভোট হবে ২৭৪টি। আর তখন বাইডেনের চেয়ে ১০টি ইলেকটোরাল ভোট বেশি হয়ে যাবে ট্রাম্পের।
এদিকে ইউএসএ টুডে’র সবশেষ নির্বাচনী প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ট্রাম্পও পিছিয়ে থাকলেও ওই ৫ রাজ্যের দিকে তাকিয়ে এখনও আশা ছাড়েননি। ৫ রাজ্যের মধ্যে ৪টিতেই এগিয়ে আছেন তিনি। এরমধ্যে শুদু নেভাদায় এগিয়ে বাইডেন। নেভাদা যদি ডেমোক্র্যাটদের দখলে চলে যায় তবে ট্রাম্পের আশার প্রদীপ নিশ্চিত নিভে যাবে। সেক্ষেত্রে বাইডেন ২৭০ ইলেকটোরাল ভোট পেয়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়ে যাবেন।
বাইডেন নেভাদায় জয়ী হলে আর ট্রাম্প বাকি ৪টি অঙ্গরাজ্যে জয়ী হতে পারলে মাত্র ২টি ইলেকটোরাল ভোটের ব্যবধানে প্রেসিডেন্ট পদে বিজয়ী হয়ে যাবেন বাইডেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *