প্যাংগং লেক থেকে চীনা সেনাদের হটিয়ে প্রতিশোধ নিল ভারত

নিউজ দর্পণ ডেস্ক: লাদাখের বিরোধপূর্ণ গালওয়ান উপত্যকায় গত এপ্রিল থেকেই ভারত-চীনের মধ্যে উত্তেজনা চলে আসছে। এর কিছুদিন পর ১৫ জুন গালওয়ানের প্যাংগং লেকের কাছে উভয়পক্ষের সংঘর্ষে ২০ ভারতীয় সেনা নিহত হয়েছিল। এবার সেই প্যাংগং থেকে চীনা সেনাদের হটিয়ে প্রতিশোধ নিল ভারত।

ভারতীয় গণমাধ্যমের দাবি, এখন পরিস্থিতি পাল্টেছে, তাই চীনা ষড়যন্ত্রের আভাস পেয়েই শনিবার চীনের পিএলএর অত্যাধুনিক রাডার ও ক্যামেরার চোখে ধুলো দেয় ভারত। পরে দক্ষিণ প্যাংগং লেক সংলগ্ন পাহাড়ি এলাকার পুরোপুরি দখল নিয়ে নিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী।

গত মার্চ মাস থেকেই প্যাংগং হ্রদের উত্তর পারে আগ্রাসন চালিয়ে আসছিল চীনা বাহিনী। কিন্তু পরিস্থিতি আরো ঘোলা হয়ে ওঠে আগস্টের ২৯ ও ৩০ তারিখে। একতরফাভাবে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার অবস্থান বদলে ভারতীয় ভূখণ্ড দখল করতে এগিয়ে আসে প্রায় ২০০ চীনা সেনার একটি দল।

তবে এবার সর্বোচ্চ প্রস্তুত ছিল ভারতীয় বাহিনী। আগ্রাসন প্রতিহত করে এত দিন পর্যন্ত ফাঁকা পড়ে থাকা প্যাংগং হ্রদের দক্ষিণে পাহাড়ি অঞ্চলগুলোর দখল নিয়ে নেয় ভারতীয় সেনাবাহিনী। অবস্থা বেগতিক দেখে পিছিয়ে যায় লালফৌজ। যদিও চীনের দাবি, তারা সীমান্তে কোনো রকম আগ্রাসন দেখায়নি। উল্টো ভারতীয় সেনাদের বিরুদ্ধেই সীমান্ত পার হয়ে উত্তেজনা ছড়ানোর অভিযোগ তুলেছে।

গালওয়ান উপত্যকায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের পর সামরিক স্তরে কয়েক দফা বৈঠক হয়েছে ভারত ও চীনের। ভারতীয় সেনার ১৪ নম্বর কোরের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল হরেন্দ্র সিংহ এবং চীনের শিনজিয়াং মিলিটারি ডিস্ট্রিক্ট কমান্ডার মেজর জেনারেল লিউ লিন পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতেও রাজি হয়েছিলেন।

কিন্তু সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে রাজি হয়েও ফের চীনা হামলায় রীতিমতো ক্ষুব্ধ নয়াদিল্লি। তাই আগেভাগেই প্যাংগংয়ে উঁচু জায়গা দখল করেছে ভারতীয় সেনারা। বেশ কিছু এলাকায় দু’দেশের ট্যাংক বাহিনী পরস্পরের নিশানায় রয়েছে।

প্যাংগং পরিস্থিতি পর্যালোচানার জন্য মঙ্গলবার প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল, চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ জেনারেল বিপিন রাওয়াত এবং সেনাপ্রধান এম এম নারাভানে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, বৈঠকের পরও প্যাংগং লেক ও ফিঙ্গার এলাকাগুলো থেকে পিছু হটতে রাজি হয়নি চীনারা। বরং পূর্ব লাদাখের গালওয়ান, গোগরা, হট স্প্রিং, দেপসাং সমতলভূমি, প্যাংগং হ্রদ ও পাহাড়ি খাঁজ বা ফিঙ্গার পয়েন্টগুলোতে চীনা বাহিনীকে ঘাঁটি গেড়ে থাকতে দেখা যায়।

ভারতীয় সেনা সূত্রে জানা গিয়েছে, প্যাংগং লেকের দক্ষিণের অংশ এখন ভারতীয় সেনার নজরদারিতে রয়েছে। চীনের বাহিনী তাদের সামরিক সরঞ্জাম নিয়ে পিছু হটতে বাধ্য হয়েছে। খবর ইন্ডিয়া টাইমস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *