ধানের শীষের প্রচার বানচালের ষড়যন্ত্র হচ্ছে: জাহাঙ্গীর

নিউজ দর্পণ, ঢাকা: প্রতীক পাওয়ার পর গত ২৩ অক্টোবর জুমার নামাজ আদায় করে উত্তরা ৭ নম্বর সেক্টরের ১ নং সড়ক থেকে ধানের শীষের পক্ষে হাজার হাজার নেতাকর্মী সমর্থকদের সাথে নিয়ে আনুষ্ঠানিক প্রচার শুরু করেন বিএনপি প্রার্থী এস এম জাহাঙ্গীর হোসেন। ওইদিনের জনস্রােত দেখে ভীত হয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ কোনো না কোনো প্রক্রিয়ায় ধানের শীষের প্রার্থী এস এম জাহাঙ্গীরের প্রচারে বাধা সৃষ্টি করছে। কখনো রাতের আধারে, কখনো দিনের আলোতে কর্মী-সমর্থকদের বাসাবাড়িতে হামলা করা হচ্ছে। হামলা করা হচ্ছে গণসংযোগেও।
প্রচার শুরুর পর থেকে এভাবেই নানাভাবে ঢাকা-১৮ আসনের বিএনপি নেতাকর্মীদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। এসব অভিযোগ জানালেও নির্বাচন কমিশন ও আইন শৃঙ্খলা প্রয়োগকারী সংস্থা আওয়ামীগের দায়ি ব্যক্তিদের বিররুদ্ধে কোনোই ব্যবস্থাই গ্রহণ করছে না। তবে, এসব বাধা এস এম জাহাঙ্গীরের প্রচারে কোনো প্রভাবই ফেলতে পারছে না। বরং গণসংযোগে কর্মী-সমর্থকদের উপস্থিতি প্রতিদিনই বাড়ছে। প্রচারের ৫ম দিনে আজ মঙ্গলবারও প্রচারে বাধার সৃষ্টি করা হয়েছে। তারপরও নেতাকর্মী সমর্থকদের সরব উপস্থিতি তাই বলে দিচ্ছে ধানের শীষের গণজোয়ার কোন পর্যায়ে আছে।
আজ মঙ্গলবার উত্তরা ৯ নং সেক্টরে থেকে হাজার হাজার নেতাকর্মী-সমর্থক সাথে নিয়ে ধানের শীষ প্রতীকের পক্ষে ভোট প্রার্থণা করে প্রচারের শুরুতে সংক্ষিপ্ত পথ সভায় এস এম জাহাঙ্গীর বলেন, আজকের উপস্থিতি প্রমান করে ঢাকা-১৮ আসামের জনগণ বিএনপির সাথে ছিল আছে এবং থাকবে। ১২ নভেম্বর সেটা প্রমাণ করে দিবে। ১২ নভেম্বর সবাই নির্ভয়ে ভোটকেন্দ্রে যাবেন। আমাদের নেতাকর্মীরা কেন্দ্রে থাকবেন। যতই রক্তচক্ষু থাকুক আমরা সেটা মোকাবেলা করবো। সরকারের সকল অন্যায় অবিচার, দুর্নীতি, সন্ত্রাস, মিথ্যা মামলা ও নির্যাতনের জবাব জনগণ ব্যালটের মাধ্যমে দিবে। ধানের শীষ কে বিজয় করবে।
গণসংযোগকালে নেতাকর্মীরা খালেদা জিয়া ভয় নাই রাজপথ ছাড়ি নাই, ভোট দিবেন কিসে, ধানের শীষে, মা বোনদের বলে যাই ধানের শীষে ভোট চাই ইত্যাদি স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত করে পুরো এলাকা।
পথসভায় জাহাঙ্গীর বলেন, আমরা প্রশাসনের কাছে অনুমতি নিয়ে কর্মসূচি নির্ধারণ করি। কিন্তু প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগ আমাদের ঘোষিত স্থানে পাল্টা কর্মসূচি দিয়ে আমাদের পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচি বানচালের চেষ্টা করছে। আর যদি আমাদের কোন প্রোগ্রাম ষড়যন্ত্র করে বানচাল করার চেষ্টা করে তাহলে আমরা শান্তিপূর্ণভাবে ঘরে বসে থাকবো না। জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে জনগণ সিদ্ধান্ত নেবে আমরা তাই করব।
ধানের শীষের প্রার্থী বলেন, গণতন্ত্র ফেরত চাই, ধানের শীষে ভোট চাই। সারাদেশে বিএনপিসহ বিরোধী মতের মানুষের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা, নির্যাতন চলছে। মা-বোনদের ইজ্জত ভূলুণ্ঠিত হচ্ছে। আমরা বলতে চাই, কোন নারী নির্যাতনকারীর স্থান বাংলাদেশের মাটিতে হবে না। নারী নির্যাতনে সহায়তাকারী সরকার ক্ষমতায় থাকতে পারবে না।
হাজী সেলিমের ছেলেকে গতকাল গ্রেপ্তার করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সে কী করেছে? প্রশাসনের ওপর হামলা করেছে, প্রশাসনের লোকদের মারধর করেছে। এতে যদি সরকার নীরব থাকে তাহলে তাদের ক্ষমতায় থাকার নৈতিক অধিকার নেই।
আমাদের দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া নির্দেশ দিয়েছেন, দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও, আমাদের প্রিয় নেতা তারেক রহমান বলেছেন গণতন্ত্র ফেরত চাই, ধানের শীষে ভোট চাই। কোন হামলা-মামলা করে বিএনপি নেতাকর্মীদের দাবিয়ে রাখা যাবে না। কারণ ঢাকা-১৮ আসনের জনগণ বিএনপির সাথে ছিল আছে। যতবার দেশের মানুষ ভোট দিতে পেরেছে, ততবার এই আসনে ধানের শীষ বিজয়ী হয়েছেন।
গণসংযোগে এস এম জাহাঙ্গীরের সাথে ছিলেন বিএনপি দলীয় সাবেক সংসদ সদস্য নাজিম উদ্দিন আলম, বিএনপি নেতা আকরামুল হাসান, ওমর ফারুক শাফিন, আবদুল আলীম নকি, সুমন সরকার ,ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল, সিনিয়র সহ-সভাপতি রওনকুল ইসলাম শ্রাবন, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান আমিন,ঢাকা মহানগর উত্তর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক গাজী রেজাউল হক রিয়াজ, ঢাকা মহানগর উত্তর মহিলা দলের সভানেত্রী পিয়ারা মোস্তফাসহ বিএনপি ও তার অঙ্গসংগঠনের কয়েক হাজার নেতাকর্মী ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *