ধর্ম অবমাননা সহিংস উগ্রবাদ উসকে দেয়: জাতিসংঘ

নিউজ দর্পণ ডেস্ক : মহানবীকে (সা.) অবমাননা ঘিরে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনা নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের উগ্রবাদবিরোধী সংস্থার প্রধান মিগুয়েল অ্যাঞ্জেল মোরাটিনোস।
বুধবার এক বিবৃতিতে বিভিন্ন ধর্ম ও রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গির লোকজনকে পরস্পরের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। বিবৃতিতে তিনি বলেন, উসকানিমূলক ব্যঙ্গচিত্র নিরপরাধ মানুষের বিরুদ্ধে সহিংসতাকে উৎসাহিত করেছে; যারা কেবল ধর্ম, বিশ্বাস ও নৃতাত্ত্বিক পরিচয়ের কারণে হামলার শিকার হচ্ছেন।
মিগুয়েল বলেন, ধর্ম ও ধর্মীয় পবিত্রতার প্রতীককে অমর্যাদায় বিদ্বেষ ও সহিংস উগ্রবাদকে উসকে দেয়া হয়, যা সমাজকে খণ্ডিত ও মেরুকরণের দিকে ঠেলে দেয়।
বিবৃতিতে বলা হয়, মহানবী মোহাম্মদকে (সা.) নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের জেরে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনা ও অসহিষ্ণুতার দৃষ্টান্ত গভীর উদ্বেগের সঙ্গে নজর রাখছে জাতিসংঘের উচ্চপ্রতিনিধি।
হযরত মুহাম্মদ (সা.)কে নিয়ে ফরাসি ম্যাগাজিন শার্লি এবদো অপমানজনক ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন ছাপায় গভীর উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ। জাতিসংঘের হাই রিপ্রেজেনটেটিভ ফর দ্য এলায়েন্স অব সিভিলাইজেশন এক বিবৃতিতে বুধবার (২৮ অক্টোবর) সকল ধর্ম ও বিশ্বাসের প্রতি পারস্পরিক শ্রদ্ধা ও ভ্রাতৃত্ব ও শান্তির সংস্কৃতি গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছে।
এ বিষয়ে সংস্থাটির কর্মকর্তা অ্যাঙ্গেল মোরাটিনোস উদ্বেগ জানিয়ে বলেন, সম্প্রতি ফরাসি সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন শার্লি এবদো ইসলামের নবী মুহাম্মদ (সা.)-এর ব্যঙ্গাত্মক ছবি প্রকাশ করায় উত্তেজনা এবং অসহিষ্ণুতার ঘটনা গভীর উদ্বেগের সঙ্গে অনুসরণ করছে জাতিসংঘ।
মোরাটিনোস উল্লেখ করেন, ওই কার্টুনের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের আবেগ, অনুভূতি, ধর্ম, বিশ্বাস বা জাতিসত্তায় আক্রমণ করা হয়েছে।

তিনি জোর দিয়ে বলেন, ধর্মবিদ্বেষী মনোভাব বা বক্তব্য ঘৃণা ও সহিংস উগ্রবাদকে উস্কে দিচ্ছে, ফলে সমাজে অস্থিরতা বিরাজ করে। ফলে মত প্রকাশের স্বাধীনতা এমনভাবে প্রয়োগ করা উচিত যেন কোন ধর্মের প্রতি অবজ্ঞা না করা হয়। সকল ধর্মের প্রতি পূর্ণ শ্রদ্ধা রাখা উচিত বলেও উল্লেখ করেন জাতিসংঘের এই কর্মকর্তা।
সম্প্রতি ‘ইসলাম ধর্ম সঙ্কটে’ রয়েছে এমন মন্তব্য করেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। একই সঙ্গে মুসলমানদের বিচ্ছিন্নতাবাদী আখ্যা দেন ম্যাক্রোঁ। ইসলামি বিচ্ছিন্নতাবাদ কঠোর হস্তে দমনেরও ঘোষণা দেন তিনি।
কার্টুন প্রকাশে বন্ধের আহ্বানের বিষয়ে তিনি বলেন, কার্টুন প্রকাশনা তিনি বন্ধ করতে পারবেন না। কার্টুন প্রকাশ বন্ধ করাকে স্বাধীন মত প্রকাশের ওপর আঘাত বলে মন্তব্য করেন তিনি।
এ ঘটনার পরপরই ফ্রান্স এবং ম্যাক্রোঁর ধর্ম নিয়ে একের পর এক তীর্যক মন্তব্যে ক্ষোভে ফুসছে তুরস্ক, পাকিস্তান, মালয়েশিয়া ও বাংলাদেশসহ বিশ্বের অনেক দেশ। প্রতিবাদে বিভিন্নস্থানে ম্যাক্রোঁবিরোধী মিছিল করেছে মুসলমানরা।
তারপরও ফরাসি ম্যাগাজিন শার্লি এবদোর বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থাও নেননি, নিজের অপরাধের জন্য ক্ষমা লজ্জিত নন বরং আরো উস্কানি দিয়ে যাচ্ছেন প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ। এমন পরিস্থিতিতে শার্লি এবদোর কাণ্ডে উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *