দেশের সঠিক ইতিহাস নিশ্চিহ্ন করার পাঁয়তারা ও ষড়যন্ত্র অব্যাহত: মির্জা ফখরুল

নিউজ দর্পণ, ঢাকা:  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ কর্তৃক দেশের সঠিক ইতিহাস নিশ্চিহ্ন করার ঘৃন্য পাঁয়তারা ও ষড়যন্ত্র অব্যাহত গতিতে চলমান রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

গত ২৫ অক্টোবর পুরাতন ঢাকার মালিটোলায় অবস্থিত ‘শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়’ এর নাম পরিবর্তনের ন্যাক্কারজনক ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। আজ মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের ঘোষণাসহ বীরত্বপূর্ণ, গৌরবোজ্জল ও সাহসী ভূমিকা এবং পরবর্তীতে বহুদলীয় গণতন্ত্র পূণ:প্রতিষ্ঠা, আধুনিক ও স্বনির্ভর বাংলাদেশ গড়ায় যুগান্তকারী নেতৃত্ব প্রদান করার স্বীকৃতি হিসেবে ২০০৬ সালে ঢাকার তৎকালীন মেয়র মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকা ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে পুরাতন ঢাকার মালিটোলায় শহীদ প্রেসিডেন্ড জিয়াউর রহমানের নামে ‘শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়’ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। বর্তমান সরকারের ইতিহাস বিকৃতি ও প্রতিহিংসার রাজনীতির বশবর্তী হয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন উক্ত বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তনের ন্যাক্কারজনক সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই ঘটনায় সমগ্র দেশবাসীর সাথে আমরও তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, মহান স্বাধীনতার ঘোষক ও সাবেক প্রেসিডেন্ট শহীদ জিয়াউর রহমান বীর উত্তম এবং বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী এদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী ‘গণতন্ত্রের মা’ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে নিয়ে বর্তমান হিংসাপরায়ণ সরকারের প্রতিহিংসার আগুন যেন কোনভাবেই থামছেই না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ কর্তৃক দেশের সঠিক ইতিহাস নিশ্চিহ্ন করার ঘৃন্য পাঁয়তারা ও ষড়যন্ত্র অব্যাহত গতিতে চলমান রয়েছে। সাবেক প্রেসিডেন্ট শহীদ জিয়াউর রহমানের নামে বিভিন্ন স্থাপনা থেকে তাঁর নাম মুছে ফেলাসহ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার ও কুৎসা রটনার মধ্য দিয়ে আওয়ামী অবৈধ সরকারের প্রতিহিংসাপরায়ণ চেহারা জনগণের নিকট ক্রমেই স্পষ্ট হয়ে উঠছে।

শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান এদেশের একজন সফল প্রেসিডেন্ট ছিলেন, আর এটিই আওয়ামী লীগের অন্তজর্¦ালা। তাই আওয়ামী লীগ সরকার একের পর এক বিভিন্ন স্থাপনা থেকে শহীদ জিয়ার নাম মুছে দেয়ার মাস্টারপ্ল্যানের অংশ হিসেবেই পুরাতন ঢাকার মালিটোলায় অবস্থিত ‘শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়’ এর নাম পরিবর্তন করেছে। প্রতিহিংসার জ¦ালা মেটাতে এই ঘটনা ধারাবাহিকতা। কিন্তু শত চেষ্টা করলেও বাংলাদেশের জনগণের হৃদয় থেকে শহীদ জিয়ার নাম মুছে দেয়া কোনভাবেই সম্ভব নয়। শহীদ জিয়া তাঁর অমর কৃতিত্বের জন্য মানুষের মাঝে চিরকাল বেঁচে থাকবেন। আমি অবিলম্বে পুরাতন ঢাকার মালিটোলায় অবস্থিত ‘শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়’ এর নাম পুণ:স্থাপনের জোর আহবান জানাচ্ছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *