টিভির সংবাদ শিরোনামে বিজ্ঞাপন প্রচারে নিষেধাজ্ঞার আদেশ স্থগিত

নিউজ দর্পণ, ঢাকা: বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে সংবাদ প্রচারের েেত্র বিভিন্ন অংশে বাণিজ্যিক বিজ্ঞাপন প্রচারের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে হাইকোর্টের দেয়া আদেশ স্থগিত করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

এ সংক্রান্ত এক আবেদনের ওপর শুনানি নিয়ে আজ রোববার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের ভার্চুয়াল বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

আদালতে আজ রিটের পে শুনানি করেন ব্যারিস্টার মাসুদ আহমেদ সাঈদ। বিটিআরসির পে ছিলেন ব্যারিস্টার খোন্দকার রেজা-ই রাকিব। অন্যদিকে চ্যানেল আইয়ের পে ছিলেন এ এম আমিন উদ্দিন, চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের পে ছিলেন মো. আসাদুজ্জামান এবং দীপ্ত টিভির পে ছিলেন অ্যাডভোকেট মুরাদ রেজা।

বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে সংবাদ প্রচারের সময় বিভিন্ন অংশে বাণিজ্যিক কোম্পানির স্পন্সর করে বিজ্ঞাপন প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি করে ২০১৯ সালের ৬ মে আদেশ দেন হাইকোর্ট।

এ আদেশের বিরুদ্ধে লিভ টু আপিল দায়ের করে চ্যানেল আই, চ্যানেল টোয়েন্টিফোর ও দীপ্ত টিভি। আপিল বিভাগ তাদের আবেদন মঞ্জুর করে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা স্থগিত করে আদেশ দন।

চ্যানেল আইয়ের পরে আইনজীবী এ এম আমিন উদ্দিন বলেন, ১৯৫২ সালের বিজ্ঞাপন সংক্রান্ত যে আইন আছে, আমরা আদালতের কাছে তা তুলে ধরেছি। আদালত এসব বিষয় বিবেচনা করে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করেছেন।

আমরা আদালতের কাছে বলেছি, টেলিভিশনগুলোর আয়ের উৎস তাদের বিজ্ঞাপন। এখন এটা যদি বন্ধ হয়ে যায়, তাহলে অনেক টিভি চ্যানেলই টিকে থাকতে পারবে না। তারা এ আয়ের ওপর নির্ভর করেই টিকে থাকে। পরে আদালত এসব বিষয় বিবেচনায় নিয়ে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করেন।

ব্যাংক বাণিজ্য সংবাদ, হাসপাতাল স্বাস্থ্য সংবাদ এভাবে টাইটেল স্পন্সর করে বিজ্ঞাপন প্রচারে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে ২০১১ সালে হাইকোর্টে রিট করা হয়। এম এ মতিন নামের এক স্কুলশিক এই রিট দায়ের করেন। রিটে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব, সেসময়কার বেসরকারি সব টেলিভিশন চ্যানেলের মালিকসহ মোট ২৪ জনকে বিবাদী করা হয়।

রিটে বলা হয়, এভাবে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে বিজ্ঞাপন নিয়ে সংবাদ প্রচারের সময় ওইসব প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রচারের েেত্র সংবাদের নিরপেতা নিয়ে প্রশ্ন উঠে।

তবে এম এ মতিনের মৃত্যুর পর ফারুক মো. হাসিব নামের একজন ব্যবসায়ী ওই রিটে পভুক্ত হয়ে মামলার কার্যক্রম চলমান রাখেন। পরে ওই রিটের ওপর রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

রুলের চূড়ান্ত শুনানি নিয়ে সংবাদ প্রচারের েেত্র বিভিন্ন অংশে বাণিজ্যিক বিজ্ঞাপন প্রচারের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে রায় ঘোষণা করেন হাইকোর্ট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *