করোনা মোকাবেলায় সরকারের উদ্যোগ দেখি নাই: মান্না

নিউজ দর্পণ, ঢাকা: করোনা মোকাবেলায় সরকার কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বলে আমি তো দেখি না। কিন্তু হাসপাতালগুলোতে যা করেছে তা এতোটাই অপ্রতুল যে, এগুলো নিয়ে স্বাস্থ্য খাতের দুর্নীতিবাজদের চেহারা উন্মোচিত হয়েছে বলে মনে করেন নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

মাহমুদুর রহমান মান্না। বর্তমানে তিনি নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক। ১৯৭২ সালে চাকসুর জিএস নির্বাচিত হন। ১৯৭৩ সালে জাসদ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং ১৯৭৬ সালে জাসদ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি হন। ১৯৭৯ সালে ডাকসুর ভিপি নির্বাচিত হন। ১৯৮০ সালে তিনি বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল বাসদ গঠনের অন্যতম উদ্যোক্তা। ১৯৮৩ সাল থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে তিনি সক্রিয় হয়ে পড়েন। পরে ১৯৯১ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৯ সালে বাংলাদেশে আওয়ামী লীগের পদ থেকে বাদ পড়েন মান্না।

বর্তমানে তিনি নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক এবং জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রথম সারির নেতা হিসেবে সক্রিয়। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা, ঐক্যফ্রন্টের কার্যক্রম, মেজর (অব.) সিনহা হত্যা এবং করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সরকারের ব্যবস্থাসহ নানা বিষয়ে  কথা হয় মাহমুদুর রহমান মান্নার।

নিউজ দর্পণ : জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?

মাহমুদুর রহমান মান্না: বিগত নির্বাচনের পরে এসব বিষয় নিয়ে এখন পর্যন্ত জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বসে আলোচনা করেনি।

নিউজ দর্পণ: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া মনে করেন যে, নির্বাচনের আগে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জোট করা ভুল ছিল, এবিষয়ে আপনার মতামত কী?

মাহমুদুর রহমান মান্না: বেগম খালেদা জিয়া যে এই কথা বলেছেন, তার কোন প্রমাণ নেই। আমি তো শুনি নাই। এছাড়া তাদের মহাসচিব বলেছেন, এধরণের কথা (বিএনপি চেয়ারপারসন) বলেননি।

নিউজ দর্পণ: কেউ যদি বলেন ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জোট করা ভুল ছিল, আপনার মন্তব্য কী হবে?

মাহমুদুর রহমান মান্না: ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে ঐক্যফ্রন্ট হয়নি। এখানে একটা যৌথ নেতৃত্ব ছিল। আর এটা বহুবার বলা হয়েছে। আর ড. কামাল হোসেন যেহেতু সিনিয়র (ফাদার ফিগার মতো) ছিলেন, সেটুকু সম্মান তাকে আমরা দিয়েছি। কিন্তু উনার নেতৃত্বে জোট হয়েছে, সমস্ত দায়িত্ব উনার এবং সমস্ত দোষ উনার- এরকম কোন ব্যাপার না।

নিউজ দর্পণ: শোনা যাচ্ছে, ড. কামাল হোসেন ঐক্যফ্রন্টের প্রধান থাকছেন না?

মাহমুদুর রহমান মান্না: উনি তো প্রধান নন। তাই উনার থাকা আর না থাকার কথা আসবে কেনো? তবে পত্রিকায় উনাকে প্রধান লেখা হয়েছে। কিন্তু উনি প্রধান নন। তবে উনি সিনিয়র হিসেবে, সংবিধানের প্রণেতা হিসেবে সম্মান পেতেন এবং এখনো পান। কিন্তু উনি জোটের প্রধান ছিলেন না।

নিউজ দর্পণ : অনেকেই বলেন, ঐক্যফ্রন্ট এখন শুধুই নামেই আছে, কাজে নেই- এবিষয়ে আপনার মন্তব্য কী?

মাহমুদুর রহমান মান্না: ঐক্যফ্রন্ট তো কাজে নাই। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তারিখের পরে ঐক্যফ্রন্ট আজ পর্যন্ত বসতেও পারেনি।

নিউজ দর্পণ : তাহলে কী ঐক্যফ্রন্ট থাকছে না?

মাহমুদুর রহমান মান্না: ঐক্যফ্রন্ট আছে। কিন্তু কাজে নেই।

নিউজ দর্পণ : মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যার বিষয়টি আপনি কিভাবে দেখছেন?

মাহমুদুর রহমান মান্না: এটা একটা হত্যাকাণ্ড।

নিউজ দর্পণ : করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সরকার যেসব ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে, সেগুলোকে আপনি কী যথেষ্ট বলে মনে করেন?

মাহমুদুর রহমান মান্না: সরকার কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বলে আমি তো দেখি না। কিন্তু আপনি বলতে পারেন যে, হাসপাতালগুলোতে করেছে। হ্যাঁ করেছে। কিন্তু এটা এতোটাই অপ্রতুল যে, এগুলো নিয়ে স্বাস্থ্য খাতের দুর্নীতিবাজদের চেহারা উন্মোচিত হয়েছে।

নিউজ দর্পণ : করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে নাগরিক ঐক্য কী পদক্ষেপ নিয়েছে?

মাহমুদুর রহমান মান্না: আমরা ৪ জন ডাক্তার নিয়ে একটি মেডিকেল টিম করেছি। তাদের দু’জন করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। তবে এখন তারা ভালো আছেন। এছাড়া আমরা হ্যান্ড স্যানেটাইজার নিজেরাই তৈরী করে বিতরণ করেছি, মাস্ক দিয়েছি এবং ত্রাণ দিয়েছি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *