করোনায় সবচেয়ে নাজুক অবস্থা হয় মানসিক স্বাস্থ্যের : ডব্লিউএইচও

নিউজ দর্পণ ডেস্ক : বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস আজ (১০ অক্টোবর)। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘সবার জন্য মানসিক স্বাস্থ্য : অধিক বিনিয়োগ-অবাধ প্রবাহ’। করোনা পরিস্থিতির কারণে এবার ভার্চুয়াল মাধ্যমে দিবসটির বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হবে।

নভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী কিংবা যারা করোনা জয় করেছে, তাদের সবার মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর এই রোগটি প্রভাব ফেলতে সম হয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) বলছে, করোনায় সবচেয়ে নাজুক অবস্থা হয় মানসিক স্বাস্থ্যের। আবার যারা করোনায় আক্রান্ত হয়নি, তারাও কোনো না কোনোভাবে মানসিকভাবে তিগ্রস্ত হচ্ছে। এমন পরিস্থিতির মধ্যে আজ শনিবার পালন করা হচ্ছে বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস।

দিবসটি সামনে রেখে তিন দিন আগে ডব্লিউএইচও বৈশ্বিক এক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্বজুড়েই মারাত্মক সংকটে পড়েছে মানসিক স্বাস্থ্য। করোনার কারণে সব বয়সী মানুষ মানসিকভাবে বিপদগ্রস্ত হচ্ছে।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য ও জার্মানির ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মধ্যে ডব্লিউএইচওর তত্ত্বাবধানে পরিচালিত সাম্প্রতিক জরিপে দেখা গেছে, ৬৯ শতাংশ মানুষ যেকোনো রোগের শুরুর দিকে মানসিক কষ্টে পড়ে যান। তা ছাড়া করোনাকালে সামাজিক দূরত্ব মানতে গিয়েও মানসিক সমস্যায় ভুগছে বহু মানুষ।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, একশ কোটির কাছাকাছি মানুষ মানসিক সমস্যায় ভোগে। কিন্তু খুব কম মানুষই একে গুরুত্ব দেয়। জরিপে অংশ নেওয়া ৫৭ শতাংশ ফরাসি মানসিক সমস্যা নিয়ে কথাই বলতে চায় না। জার্মানি ও যুক্তরাজ্যের লোকজনের অবস্থাও প্রায় একই।

এ ছাড়া জরিপে দেখা গেছে, নারীদের তুলনায় পুরুষেরা মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে কথা বলতে কম আগ্রহী। ফ্রান্স, জার্মানি ও যুক্তরাজ্যের তিন দেশের পুরুষেরা একই মনোভাব দেখিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *